বুধবার, ১০ অগাস্ট ২০২২ | ২৬ শ্রাবণ ১৪২৯

শান্তিগঞ্জে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের উদ্যোগে ত্রাণ সামগ্রী ও গবাদিপশুর খাদ্য বিতরণ



গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের উদ্যোগে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ট্রাস্টি ডা. জাফর উল্লাহ চৌধুরীর নির্দেশনায় সুনামগঞ্জ জেলার শান্তিগঞ্জে বন্যা দূর্গত ক্ষতিগ্রস্ত ১৫ শত কৃষক পরিবারের মাঝে ১৩ মে.টন গবাদি পশুর খাদ্য কুরা ও ভূষি এবং প্রায় ১ লক্ষ পরিবারের জন্য ১ শত টন চাউল,ডাল,তেল,আলু,চিড়া,মুড়ি,জরুরী ঔষধ বিতরণের উদ্ভোধন করা হয়েছে।

শনিবার (২৫ জুন) সন্ধ্যায় পাগলা গণস্বাস্থ্যকেন্দ্রে ত্রান কর্মসূচীর আওতায় জরুরী গবাদি পশুর খাদ্য সামগ্রী বিতরণের উদ্ভোধন করেন শান্তিগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান মো. ফারুক আহমদ।

পরদিন রবিবার (২৬ জুন) সিলেট সুনামগঞ্জ আঞ্চলিক সড়কের পাশে রাখা বিভিন্ন কৃষকের গবাদি পশুর জন্য ভ্রাম্যমানভাবে গোখাদ্য বিতরণ করেন শান্তিগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আনোয়ার উজ জামান।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন পাগলা গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের পরিচালক লন্ডন প্রবাসী আব্দুল আউয়াল,গণস্বাস্থ্যকেন্দ্রের স্বাস্থ্য বিভাগের পরিচালক ডাঃ হালিমুর রেজা মিলন,কৃষি ও সমবায় বিভাগের পরিচালক প্রকৌশলী রঞ্জন কুমার মিত্র,মানব সম্পদ বিভাগের সহকারি অফিসার শাহনাজ পারভীন,গণ শিল্পালয় বিভাগের বিভাগীয় প্রধান আবুল হাসান,সিনিয়র ফার্মাসিস্ট ইমাম বনি আল হাসান সহ গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের বিভিন্ন বিভাগের সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

ত্রাণ সামগ্রী ও গবাদি পশুর খাদ্য বিতরণকালে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের স্বাস্থ্য বিভাগের পরিচালক ডা. হালিমুর রেজা মিলন বলেন,সুনামগঞ্জ জেলার শান্তিগঞ্জে ভয়াবহ বন্যার খবর পাওয়া মাত্র গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান ডা. জাফর উল্লাহ চৌধুরীর দিক নির্দেশনায় ৪১ সদস্যের একটি টিম শান্তিগঞ্জে বন্যাদূর্গতদের জন্য শুকনো খাবার,নিত্য প্রয়োজনীয় ত্রাণ সামগ্রী,গবাদি পশুর খাদ্য জরুরী ঔষধ নিয়ে আমরা মাঠে আছি আগামী ঈদ পর্যন্ত ১ শত টন নিত্য প্রয়োজনীয় ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হবে।

শান্তিগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আনোয়ার উজ জামান বলেন, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র সহ সরকারি বেসরকারিভাবে আমাদের উপজেলায় ব্যাপকভাবে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হচ্ছে। আমরা প্রতিটি বাড়ী বাড়ী গিয়ে ত্রান সামগ্রী বিতরণ করছি,ত্রাণ কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।

গবাদি পশুর জরুরী খাদ্য সামগ্রী বিতরণের উদ্ভোধন পরবর্তী শান্তিগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. ফারুক আহমেদ বলেন,গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র বন্যদূর্গত মানুষের পাশে জরুরী ত্রাণ সামগ্রী ও গবাদি পশুর খাদ্য বিতরণ করায় গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান সহ সকলকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানাই। তারা প্রতিদিন সুন্দর সুশৃঙ্খল ভাবে শান্তিগঞ্জ উপজেলার বিভিন্নভাবে গ্রামে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করছেন। আমরা উপজেলাবাসী তাদের কাছে কৃতজ্ঞ।

উল্লেখ্য, বিগত ১৯ জুন থেকে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র শান্তিগঞ্জ উপজেলায় শুকনো খাবার চিড়া,মুড়ি,গুড়,বিস্কিট ব্রেড,পানি,জরুরি ঔষধ সহ ত্রান সামগ্রী বিতরণ করে আসছেন। আগামী ২৮ জুন থেকে প্রতিদিন ১৮ শত পরিবারকে চাল,ডাল,তেল,আলু,সেমাই সহ নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রী পবিত্র ঈদুল আযহা পর্যন্ত ১ শত টন খাদ্য সামগ্রী বন্যাদূর্গত মানুষের মাঝে বিতরণ করা হবে। পাশাপাশি যাদের ঘর বাড়ী ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তাদেরকে পূনর্বাসনের ব্যবস্থা করা হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন