বুধবার, ২৯ জুন ২০২২ | ১৫ আষাঢ় ১৪২৯

উপজেলার ৮ ইউনিয়ন পরিষদে নির্বাচন : নিরাপত্তার চাদরে ঢাকা পড়েছে শান্তিগঞ্জ



রাত পোহালেই ভোট সুনামগঞ্জের শান্তিগঞ্জ উপজেলার ৮ ইউনিয়ন পরিষদে (ইউপি)। নির্বাচন ঘিরে উপজেলা নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে ফেলা হয়েছে। নির্বাচনী এলাকার সার্বিক আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে প্রশাসন ও থানা-পুলিশের পক্ষ থেকে সব ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

 থানা–পুলিশের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, নির্বাচন ঘিরে শান্তিগঞ্জ উপজেলার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে পুলিশের টহল জোরদার করা হয়েছে।

প্রতি ইউনিয়নে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করতে শান্তিগঞ্জ থানা-পুলিশের পক্ষ থেকে মোটরসাইকেলে টহল দেওয়া হচ্ছে। ভোটকেন্দ্রে ভোটারদের শান্তিপূর্ণ আগমন ও গমনে পুলিশের পক্ষ থেকে গ্রহণ করা হয়েছে বিশেষ ব্যবস্থা।

শান্তিগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী মুক্তাদির হোসেন বলেন, শান্তিপূর্ণ ও অবাধ সুষ্ঠু নিরপেক্ষ নির্বাচনের লক্ষ্যে থানা–পুলিশের পক্ষ থেকে জরুরি পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।  শান্তিগঞ্জ উপজেলার ৮ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ পরিবেশ নিশ্চিতকরণে পুলিশ সব ধরনের পদক্ষেপসহ সহযোগিতা করবে।

জগন্নাথপুর সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার সুভাশীষ ধর বলেন, ভোটকেন্দ্রের নিরাপত্তায় অস্ত্রধারী পুলিশ সদস্য ও আনসার সদস্য মোতায়েন থাকবে। এর বাইরে সাধারণ কেন্দ্রে অস্ত্রধারী পুলিশ, বিজিবি ও আনসার সদস্য থাকবেন। এ ছাড়া কেন্দ্রের বাইরে টহল পুলিশ, সাদা পোশাকের পুলিশ ও জেলা গোয়েন্দা পুলিশের সদস্যরা তৎপর থাকবেন। পাশাপাশি স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে প্রস্তুত থাকবেন জেলা পুলিশের বিশেষায়িত একাধিক ইউনিটের পাশাপাশি র‍্যাব সদস্যরাও।

শান্তিগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আনোয়ার উজ্জ জামান বলেন, শান্তিগঞ্জ উপজেলার ৮ ইউনিয়ন পরিষদে ভোটগ্রহণ অবাধ, নিরপেক্ষ ও শান্তিপূর্ণ করতে প্রশাসনের তরফে সব ধরনের পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। কোথাও কোনো বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হলে তাৎক্ষণিক আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণে একাধিক ভ্রাম্যমাণ আদালতসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী মাঠে থাকবে।

এদিকে শান্তিগঞ্জ উপজেলার ৭৮টি ভোট কেন্দ্রে নির্বাচনী সরঞ্জামাদি পাঠানোর প্রক্রিয়া চলছে। একই সঙ্গে কেন্দ্রগুলোতে চলছে বুথ তৈরির তোড়জোড়। ভোটগ্রহণে নির্বাচন কমিশনের সব রকম প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে বলে জানান কর্মকর্তারা।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •