শনিবার, ১৩ অগাস্ট ২০২২ | ২৯ শ্রাবণ ১৪২৯

প্রবাসীরা হোম কোয়ারেন্টাইন মেনে চলুন : নিজে বাঁচুন, অন্যকে বাঁচতে সহযোগিতা করুন : মোহাম্মদ হারুনুর রশীদ চৌধুরী



দক্ষিণ সুনামগঞ্জ থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ হারুনুর রশীদ চৌধুরী করোনাভাইরাস প্রতিরোধে থানা এলাকায় ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড পর্যায়ে আগত প্রবাসীদের প্রতি নজরদারী ও হোম কোয়ারান্টাইনে থাকার সরকারি প্রদত্ত দিক নির্দেশনা প্রদান করেছেন।

     করোনা ভাইরাসা প্রতিরোধে সরকারি দিক নির্দেশনা পাওয়ার পর থেকে দক্ষিণ সুনামগঞ্জ থানা পুলিশের প্রত্যেক সদস্যদের মাধ্যমে প্রতিটি এলাকার মসজিদ, মন্দির, কমিউনিটি সেন্টার, ওয়াজ মাহফিল সহ লোক সমাগম এলাকায় পর্যাপ্ত নজরদারী অব্যাহত রেখেন। ইতিমধ্যে থানা এলাকায় প্রবাসীদের তালিকা তৈরী করেছেন। আজ শুক্রবার(২০ মার্চ) মসজিদে মসজিদে বিট অফিসারদের মাধ্যমে সচেতনতামূলক ব্যক্তব্য প্রদান সহ সরকারের প্রদত্ত করোনা প্রতিরোধে নির্দেশনা প্রদান করেছেন।

এমনকি করোনা প্রতিরোধে যারা হোম কোয়ারেন্টাইনে নিজ বসত বাড়ীতে রয়েছেন তারা নিয়মের কোনো ব্যত্যয় ঘটাচ্ছেন কিনা, তার ওপর খেয়াল রাখতে পুলিশ সদস্যদের নিয়ে আলাদা সেল গঠন করে সার্বক্ষণিক তদারকী অব্যাহত রেখেন। হোম কোয়ারেন্টাইন ব্যবস্থা যাতে সঠিকভাবে বিদেশফেরতরা মেনে চলেন, তা দেখভাল করতে সার্বক্ষণিক ভাবে প্রবাসীদের পরিবার সহ ওয়ার্ড পর্যায়ে ইউপি সদস্যদের সাথে যোগযোগ স্থাপন করেছেন।

     দক্ষিণ সুনামগঞ্জ থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ হারুনুর রশীদ চৌধুরী জানান, ‘করোনাভাইরাস প্রতিরোধে যাদের কোয়ারেন্টাইনে থাকার কথা তারা সরকারের সহানুভূতিশীল পরামর্শ অমান্য করলে তাদের বিরুদ্ধে আইনানূগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। আমরা চাই না এ ধরনের কোনো আইনানূগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হউক। আমরা চাই, সবাই মিলে একসঙ্গে করোনা প্রতিরোধে ভূমিকা রাখব।’

পাশপাশি কোন প্রবাসী ব্যক্তির অবাদ চলাফেরার বিষয়টি থানা অফিসার ইনচার্জ এর নাম্বারে অথবা উপজেলা নির্বাহী অফিসার, উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তার সাথে যোগাযোগ ও তথ্য প্রদানের জন্য অনুরোধ করছি। করোনা নিয়ে যাতে কেউ গুজব প্রচার করে আইনশৃঙ্খলার অবনতি করতে না পারে সেদিকে আমাদের সতর্ক নজর দারী অব্যাহত আছে। করোনাভাইরাসের সুযোগ নিয়ে যাতে অসাধু ব্যবসায়ীরা ওষুধসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রবাদি মজুদ বা মূল্যবৃদ্ধি করতে না পারে, সেদিকে নজরদারি রয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন