শনিবার, ১৩ অগাস্ট ২০২২ | ২৯ শ্রাবণ ১৪২৯

এগিয়ে যাবে সুনামগঞ্জ, এগিয়ে যাবে বাংলাদেশ



সুনামগঞ্জের বিশিষ্ট শিল্পপতি শ্যামল রায়ের ফেসবুক থেকে (৩০ ডিসেম্বর) অনুমোদন প্রাপ্ত সুনামগঞ্জ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় মঙ্গলবার(৩০ ডিসেম্বর) সকাল বেলা নিজ ফেসবুক ওয়ালে  পোষ্ট দেন বিশিষ্ট শিল্পপতি শ্যামল রায়। তার সেই স্ট্যাটাসটি সোনালীনিউ পাঠকদের জন্য হবহু তুলে ধরা হলো :-  ‌‌‌

অগ্রগামী পৃথিবীর পথ ধৱে আমরা সামনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছি, এগিয়ে যাচ্ছে জীবনের জয়যাত্রা । আমরা আজ সবিশেষ আনন্দিত কারণ আমাদের অনেক কষ্টের ফসল সুনামগঞ্জ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় এর খসড়া আইনটি নীতিগতভাবে মন্ত্রীপরিষদ সভায় অনুমোদিত হয়েছে।
এই প্রসংগে ধন্যবাদ দিতে চাই মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনাকে যার সদয় আনুকূল্যে আজকের এই অনুমোদন! ধন্যবাদ দিতে চাই অন্যান্য মন্ত্রীমহোদয়দেরকে যাহারা অত্র প্রস্তাবনা ও আইনটি অনুমোদনে সর্বাত্নকভাবে সমর্থন করেছেন! ধন্যবাদের আবশ্যক দাবীদার মাননীয় পরিকল্পনা মন্ত্রী মহোদয় জনাব এম এ মান্নান স্যারকে, ধন্যবাদ দিতে হয় শিক্ষা মন্ত্রনালয়কে বিশেষ করে উক্ত মন্ত্রনালয়ের যুগ্ম সচিব জনাব সৈয়দ আলী রেজা ও উনার পুরোটিমকে যাদের নিরলস কর্ম প্রচেয্ঠা এই কাজের গতিকে তরান্বিত করেছে, ধন্যবাদ প্রাপ্য বিশ্ববিদ্যালয় মন্জুরী কমিশন যারা এই মহতী উদ্যোগের আতুরঘর, ধন্যবাদ দিতে হয় উক্ত কমিশনের উপ-পরিচালক জনাব মৌলি আযাদ আপু কে যার দায়িত্ব ছিলো খসড়া আইনটি শিক্ষা মন্ত্রনালয়ে উপস্তাপন, আরো অনেককে ধন্যবাদ দিতে হয় যেহেতু এই মহাযজ্ঞের সাথে অনেকের কর্ম ও উদ্দীপনা সংযোজিত এবং এই প্রকল্পের রয়েছে বিভিন্ন কর্মস্তর এবং আমার সৌভাগ্য হয়েছিলো এই পরিক্রমার বিভিন্ন ধাপের কাজ এবং সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদেরকে কাছ থেকে দেখার এবং বোঝার। আমি সৌভাগ্যবান আমার স্যার (মাননীয় পরিকল্পনা মন্ত্রী মহোদয়) আমাকে এই মহান কাজের সমন্বয় কার্যক্রম ব্যবস্তাপনায় দায়িত্ব দেন, অজানা গন্তব্যে অনেক বড় চ্যলেন্জ অতিক্রমের নিশানা ও উচ্ছাস!

স্বপরিবারে পরিকল্পনা মন্ত্রীর সাথে শিল্পপতি শ্যামল রায়।


২০১৯ সালেৱ জানুয়ারী মাসের ১৬ তাৱিখ, স্যারের সাথে দেখা করতে গেলে স্যার বললেন মেডিকেলের কাজ শেষ করলা এখন বিশ্ববিদ্যালয়টা করে ফেল তাহলেই আমার দায়িত্ব শেষ। আমি বললাম প্রাণপণ চেস্ঠা করব স্যার তবে এখানেই আমরা থামবোনা, আপনার নেতৃত্ব্ আরো অনেক কাজ স্যার নুতন দায়িত্বে নুতন উদে্্যগে করে যেতে হবে আর আমি থাকবো সাথে । আমরা আমাদের লক্ষে অনেকটা অগ্রসর হয়েছি স্যার, আরো এগিয়ে যাবো আগামীতে। আমরা এই প্রকল্পের প্রায় অর্ধেকটা পথ পারি দিয়েছি বাকী পথ শেষ করতে আরো অনেক দুর যেতে হবে। নুতন দিনের স্বপ্ন নিয়ে শুরু হবে নুতন বছর -আমরা অবিরত উন্নয়নের অগ্রযাত্রায় সহযাত্রী থাকবো আগামীর পথচলায়, এগিয়ে যাবে সুনামগঞ্জ, এগিয়ে যাবে বাংলাদেশ।

সংবাদটি শেয়ার করুন