বুধবার, ২৯ জুন ২০২২ | ১৫ আষাঢ় ১৪২৯

আ.লীগ নীতি আদর্শে বিশ্বাসী একটি সুশৃংঙ্খল দল : পরিকল্পনামন্ত্রী



পরিকল্পনা মন্ত্রী ও সুনামগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য এমএ মান্নান এমপি বলেছেন, আওয়ামী লীগ নীতি আদর্শে বিশ্বাসী একটি সুশৃংঙ্খল দল। আর আমাদের দেশে একটি উশৃংঙ্খল দল রয়েছে, যারা মাননীয় উচ্চ আদালত থেকে জোর করে বিচার কেঁড়ে নিতে চায়। দেশবাসি দেখেছেন, তারা কীভাবে আদালতে তাণ্ডব চালিয়ে বিচারকার্যকে বাঁধাগ্রস্ত করে জোরপূর্বক আসামিকে নিয়ে যেতে চেয়েছিল। কিন্তুু বর্তমান সরকার ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠা করতে কাজ করছে।

রোববার দুপুর ১টায় সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার কলকলিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, দেশ স্বাধীন হওয়ার পর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ রাষ্ট্র ক্ষমতায় আসে। বিশ্বাসঘাতকরা নৃসংশভাবে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুসহ তাঁর পরিবারের সবাইকে হত্যা করে দেশকে অভিভাবকহীন করে ফেলে। এরপর প্রায় ২০ বছর নানা ষড়যন্ত্র করে আওয়ামী লীগকে রাষ্ট্রক্ষমতা থেকে দূরে সরিয়ে রাখা হয়েছিল। ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ জনগণের রায় নিয়ে দেশ পরিচালনা করে দেশকে দুর্দশা থেকে বের করে একটি পর্যায়ে নিয়ে এসেছিল। এরপর আবারও ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে বিএনপি তথা জোট সরকার ক্ষমতায় এসে দেশজুড়ে বোমাবাজি, জ্বালাও-পোড়াও এর তান্ডব চালায়। ২০০৯ সালে আওয়ামী লীগ রাষ্ট্র পরিচালনায় পূর্বের দুই বছর ইয়াজউদ্দিনের নেতৃত্বে তত্ত্বাবধায়ক সরকার গঠন করে পিছনে সামরিক বাহিনী দিয়ে দেশ পরিচালনা করেন। এটি ছিল সাংবিধানিক পরিপস্থী।

তিনি বলেন, ২০০৯ থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত আওয়ামী লীগের সভানেত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বর্তমান সরকার দেশের উন্নয়ন কর্মযজ্ঞ শুরু করেছে।

তিনি নতুন প্রজন্মের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘আর কয়েকটা দিন অপেক্ষা কর, তোমাদের স্বপ্নের বাংলাদেশ আসছে। কারণ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দক্ষতায় উন্নয়নে পাল্টে যাচ্ছে দেশ। আমরা একটি সুখি সমৃদ্ধি আনুধিক বাংলাদেশ নির্মাণের লক্ষে কাজ করছি।’

ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ফখরুল হোসেনের সভাপতিত্বে ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান মিজানের পরিচালনায় স্থানীয় কলকলিয়া বাজারে অনুষ্ঠিত সন্মেলনের প্রথম অধিবেশনে প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য দেন সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ব্যারিষ্টার এম এনামুল করিম। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন- সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ সহ সভাপতি সিদ্দিক আহমদ, অ্যাডভোকেট শফিকুল আলম, জেলা আওয়ামী লীগ সদস্য সিরাজুল ইসলাম, নুরুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আকমল হোসেন, সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম, সহ সভাপতি আবদুল মালিক, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক লুৎফুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক বদরুল ইসলাম প্রমুখ।

এর আগে সম্মেলনের প্রথম অধিবেশনে শান্তির প্রতীক পায়রা ও জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন ও জাতীয় সঙ্গীতের মাধ্যমে শুভ সূচনা হয়।

সম্মেলনের শুরুতে কোরআন তেলাওয়াত করেন খাশিলা জামে মসজিদের ইমাম মুজিবুর রহমান, গীতা পাঠ করেন যুবলীগ নেতা রাধেশ দেবনাথ। শোক প্রস্তাব পাঠ করেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ দপ্তর সম্পাদক জিতেন্দ্র দাশ।

দ্বিতীয় অধিবেশনে কলকলিয়া ইউনিয়নের বর্তমান কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করে উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আকমল হোসেনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম রিজুর পরিচালনায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ সহ সভাপতি সিদ্দিক আহমদ।

সভায় ৯ জন সভাপতি প্রার্থী ও ৪ জন সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী তাদের প্রার্থীতা ঘোষণা করলে তাদেরকে সমঝোতার জন্য পাঠানো হয়। পরে কোন সমঝোতা না হওয়ায় প্রার্থীরা উপজেলা নেতৃবৃন্দের উপর দায়িত্ব অর্পণ করলে উপজেলা নেতৃবৃন্দ পরে কমিটি ঘোষণা করা হবে বলে সভা সমাপ্ত করেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •