সোমবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২২ | ১০ মাঘ ১৪২৮

‘ফণী’র প্রভাবে ফুঁসে উঠছে সুনামগঞ্জের মহাসিং নদী



বাংলাদেশের দিকে ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় ‘ফণী’। এর প্রভাবে দক্ষিণ সুনামগঞ্জের বৃহৎ নদী মহাসিংয়ে পানি বাড়ছে দ্রুত। গত ২ দিনে পাগলার বুকের ওপর দিয়ে বয়ে চলা মহাসিং নদীর পানি আনুমানিক ৭-৮ ফুট বেড়েছে।

সুনামগঞ্জ সীমান্তের ওপারে চেরাপুঞ্জিতে ২০০ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত ও ঘূর্ণিঝড় ফণীর প্রভাবে নদীর পানি দ্রুত বৃদ্ধি পাচ্ছে বলে জানিয়েছে সুনামগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ড।

২৪ ঘণ্টায় চেরাপুঞ্জিতে ২০০ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করেছে ভারতীয় পানি উন্নয়ন বোর্ড। গত ৩০ এপ্রিল চেরাপুঞ্জিতে বৃষ্টিপাত হয়েছে ১ দশমিক ৫৭ মিলিমিটার এবং গতকাল বুধবার (১ মে) দুপুর পর্যন্ত ৩ দশমিক ১২ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে।

ফলে ফুঁসে উঠছে মহাসিং নদীর পানি এবং তা প্রবেশ করছে খালে ও ডোবায়। নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে এখনো কোনো ফসল রক্ষা বাঁধের ক্ষতি করতে না পারলেও খালে ও ডোবায় পানি প্রবেশ করায় কাটা ফসল নিয়ে যাতায়াতে দুর্ভোগে পড়েছেন কৃষকরা। ফলে ছোট ডিঙ্গি নৌকাতেই ফসল পারাপার করতে হচ্ছে তাদের। তাছাড়া ঘূর্ণিঝড় ‘ফণী’র সতর্কতা থাকায় কৃষি জমির ফসল কর্তন করে তা ঘরে তুলতে দুশ্চিন্তায় পড়েছেন অনেক কৃষক।

তবে জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর জানিয়েছে, ইতোমধ্যে হাওরের ৮০ ভাগ জমির পাকা ধান কেটে ফেলেছেন কৃষকরা।

সুনামগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ড জানিয়েছে, আরও ৬ মিটার পানি বাড়লে ফসল রক্ষা বাঁধ উপচে হাওরে আগাম বন্যার পানি প্রবেশ করবে।

এদিকে, চলতি মাসে প্রচুর বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা থাকায় যাদের জমিতে পাকা ধান রয়েছে, সেগুলো কেটে ফেলার আহ্বান জানিয়েছেন সুনামগঞ্জের জেলা প্রশাসক।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •