সোমবার, ১৫ অগাস্ট ২০২২ | ৩১ শ্রাবণ ১৪২৯

সুনামগঞ্জে ধ্বংসের মুখে বারিক্যা টিলা



সুনামগঞ্জের পর্যটন এলাকা খ্যাত বারিক্যা টিলায় (বড়গোপটিলা) পরিবেশ বিধ্বংসী তৎপরতায় মেতে ওঠেছে স্থানীয় প্রভাবশালী একটি চক্র। অনিন্দ্যসুন্দর টিলা কেটে বসতি নির্মাণসহ সম্প্রতি টিলা থেকে পাহাড় উত্তোলনের জন্য ওই চক্র বনবিভাগের বাগান কেটে সেখান থেকে পাথর উত্তোলন করে বিক্রি করছে।

এ ঘটনায় বনবিভাগের উপকারভোগী বাগানের সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে মামলাও দিয়েছে বন ও টিলাখেকোরা। এ ঘটনায় এলাকাকাবাসী পরিবেশ বিধ্বংসকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে শুক্রবার দুপুরে কয়েক হাজার মানুষ মানববন্ধন করেছেন। সম্প্রতি স্থানীয় ইউনিয়ন ভূমি অফিস বন ও টিলা ধ্বংসকারীদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে।

তাহিরপুর উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, মেঘালয় পাহাড়ের কূল ঘেষে সীমান্ত নদী যাদুকাটার তীরে বাংলাদেশ অংশে একটি পাহাড়াকৃতির সুউচ্চ টিলা রয়েছে। ঢালু ও খাড়া প্রকৃতির এই টিলাটি সরকারি রেকর্ডে বড়গোপটিলা হিসেবে চিহ্নিত থাকলে এক দশক ধরে বারিক্যাটিলা হিসেবে পরিচিতি পেয়েছে।

দৃষ্টিনন্দন এই টিলাটি পর্যটকদের আকর্ষণ করে। পাহাড় ও নদী সংশ্লিষ্ট গহীন বনের এই নৈসর্গিক টিলাটিতে প্রায় ৩১২ একর জমি রয়েছে। যার সবটুকুই সরকারি ১নং খাস খতিয়ান ভুক্ত।

এই টিলায় একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়, একটি মিশনারি বিদ্যালয় এবং একটি গীর্জাসহ মসজিদও রয়েছে। টিলার নিচেই একটি কমিউনিটি ক্লিনিকও রয়েছে। কমিউনিটি ক্লিনিকের নিচে গত বছর ৫-৭টি বসতবাড়ি নির্মাণ করা হয়েছে টিলা কেটে।

টিলার পশ্চিমাংশ কেটে বসতি স্থাপন করায় ১১ সেপ্টেম্বর থেকে কয়েক দিনের টানা বৃষ্টিতে টিলা ভেঙ্গে বালু ও পাথরে রাস্তা ও ফসলি বোরো জমি ভরাট হয়ে গেছে। টিলা কেটে বসতবাড়ি নির্মাণ বন্ধ না হলে পুরো টিলাটিই ঝূকির মুখে পড়বে বলে স্থানীয়দের আশঙ্কা।

সংবাদটি শেয়ার করুন