বুধবার, ১৭ অগাস্ট ২০২২ | ২ ভাদ্র ১৪২৯

জঙ্গিবাদ ও মাদক যুব সমাজের সম্ভাবনাকে ধ্বংস করে দেয় : আল্লামা ফরীদ উদ্দীন মাসঊদ



আলেম-জনতার ঐক্য গড়ার আহবানে সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, মাদক ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে যশোর থেকে সুনামগঞ্জ চার দিনব্যাপী পথযাত্রার সমাপনী সমাবেশে বাংলাদেশ জমিয়তুল উলামার চেয়ারম্যান কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়া ঈদগাহের ইমাম আল্লামা ফরীদ উদ্দীন মাসঊদ বলেছেন, ‘দুর্নীতি দেশের অগ্রগতি ও টেকসই উন্নয়নকে ক্ষতিগ্রস্ত করে। জঙ্গিবাদ ও মাদক যুব সমাজের সম্ভাবনাকে ধ্বংস করে দেয়। ইসলাম কোনভাবেই জঙ্গিবাদ সমর্থন করে না। তাই এসবের বিরুদ্ধে আলেম-জনতার সামাজিক ঐক্য গড়তে হবে। দুর্নীতি রোধ ও কঠোরভাবে দমন করতে না পারলে এদেশের উন্নয়ন টেকসই হবে না।’

মঙ্গলবার (৯ অক্টোবর) দুপুরে চার দিনব্যাপী পথযাত্রা সিলেট থেকে সুনামগঞ্জ শহরে এসে পৌঁছায়। এরপর শহরের পুরাতন বাসস্ট্যান্ড এলাকায় সমাপনী সমাবেশ ও দোয়া হয়।

যশোর জেলা শহরের চাঁচড়া মোড় থেকে ৬ অক্টোবর এই পথযাত্রা শুরু হয়েছিল। এরপর খুলনা, গোপালগঞ্জ, ফরিদপুর, মাদারীপুর, মুন্সিগঞ্জ, ভৈরব, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, হবিগঞ্জ, মৌলভীবাজার ও সিলেট হয়ে পথযাত্রা সুনামগঞ্জে আসে। প্রায় ৭০টি মাইক্রোবাস নিয়ে জমিয়তুল উলামার নেতাকর্মীরা পথযাত্রায় অংশ নেন। পথে পথে সমাবেশ করেন তাঁরা।

সুনামগঞ্জের বিশিষ্ট আইনজীবী সৈয়দ শামসুল ইসলামের সভাপতিত্বে ও সংগঠনের কেন্দ্রীয় প্রচার সম্পাদক মাসুদুল কাদীরের সঞ্চালনায় সমাপনী সমাবেশে ফরীদ উদ্দীন মাসঊদ আরও বলেন, ‘এই পথযাত্রা কোনো দল করার জন্য নয়, কোনো ব্যক্তির জন্য নয়, এটা দেশের জন্য, দেশের মানুষের কল্যাণের জন্য। ইসলাম শান্তির ধর্ম, এই ধর্মে মারামারি-কাটাকাটির কথা উল্লেখ নেই। ইসলামে জঙ্গিবাদের স্থান নেই।’

তিনি আরও বলেন, ‘দুর্নীতি দমন করতে না পারলে এদেশের উন্নয়ন টেকসই হবে না। আমরা জনতার ঐক্যের মাধ্যমে মানুষের গুণাবলী বাতাসে ছড়িয়ে দিতে চাই। সন্ত্রাস করবো না। সন্ত্রাসের কাছেও যাব না। দল করার উদ্দেশ্যে এই পথযাত্রা নয়। আমরা সমাজকে মাদকমুক্ত, দুর্নীতিমুক্ত ও সন্ত্রাসমুক্ত দেখতে চাই।’

আল্লামা ফরীদ উদ্দীন মাসঊদ বলেন, ‘আমরা দুর্নীতি করবো না, দুর্নীতি করতে দেব না, আমরা সন্ত্রাস করবো না, অন্য কাউকে করতে দেব না। আমরা মাদকের কাছে যাব না, অন্য কাউকেও মাদক গ্রহণ করতে দেব না। এসব কাজ থেকে বিরত থাকলে অশেষ সোয়াব হাসিল হবে এবং যারা এই কাজ করছে তারাও একসময় ফিরে আসবে।’

তিনি বলেন, ‘রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে নয়, আল্লাহতালার বার্তা পৌঁছে দেবার জন্যই এই পদযাত্রা। তবে বর্তমান সরকারকে আমরা ধন্যবাদ জানাই। কারণ বর্তমান সরকার মাদ্রাসা শিক্ষাকে স্বীকৃতি দিয়েছে। এজন্য দোয়া করি।’

সমাপনী সমাবেশে আরও বক্তব্য দেন জমিয়তুল উলামার কেন্দ্রীয় সহসভাপতি মাওলানা ইয়াহহিয়া মাহমুদ ও মুফতি ইব্রাহিম, সাংগঠনিক সম্পাদক এমদাদুল হক কাশেমী, সংগঠনের ঢাকা মহানগর শাখার সভাপতি মাওলানা দেলোয়ার হোসাইন সাঈদী, সংগঠনের কেন্দ্রীয় নেতা মাওলানা আবু সুফিয়ান, আইউব আনসারী, সুনামগঞ্জ শহরের তেঘরিয়া মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল মাও. আনোয়ার হুছাইন প্রমুখ। সমাবেশের আলোচনা সভার পর বিশেষ মোনাজাত হয়।

সংবাদটি শেয়ার করুন