শনিবার, ১৩ অগাস্ট ২০২২ | ২৯ শ্রাবণ ১৪২৯

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাববে বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম : সুনামগঞ্জের টেক্সটাইল ইনস্টিটিউট প্রকল্পটি ২০০ কোটি ছাড়িয়ে যাবে



প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম এমপি বলেছেন, টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কর্মক্ষেত্রে বিদেশীদেশীদের ১৫ হাজার লোক বাংলাদেশে কাজের সুযোগ পায় এবং তারা ডলারে যে পরিমান বেতন নিয়ে যায় তা বাংলাদেশের ৭লক্ষ শ্রমিকের বেতনের সমান। কিন্তু আগামীতে বাংলাদেশের লোক টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং খাতে কাজ করবে। দেশের সাশ্রয় হবে। সে জন্য বস্ত্রখাতে দক্ষতা অর্জনে দেশের প্রত্যেক জেলায় একটা করে টেক্সটাইল ইনস্টিটিউট ও বৃহত্তর জেলায় গুলোয় একটা করে টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ স্থাপন করা হচ্ছে নীতিমাল করে।সুনামগঞ্জের টেক্সটাইল ইনস্টিটিউট প্রকল্পটি ১২০ কোটি টাকার হলেও প্রকল্পটির আরো কাজ বাস্তবায়ন করতে ২০০ কোটি টাকা ছাড়িয়ে যাবে।

প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম রোববার দুপুরে দক্ষিণ সুনামগঞ্জের শান্তিগঞ্জে ১২০ কোটি টাকা ব্যয়ে ‘সুনামগঞ্জ টেক্সটাইল ইনস্টিটিউট’ এর ভিত্তি প্রস্তর অনুষ্টান শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে পাট খাতকে যুগপোযুগি করছি,। রসি, ছালা, বস্তার মধ্যে আমার সীমাবদ্ধা না, এখন পাট থেকে ২৮৫টা পণ্য তৈরি হচ্ছে। যা গত তিন বছর আগে ছিল মাত্র ৩৫টি। গৃহস্থালির সব পন্য এখন পাট থেকে তৈরি হচ্ছে। পাট থেকে ১০২ ধরনের ফেব্রিক্স, ডেনিম তৈরি হচ্ছে। যা আগে বিদেশ থেকে আমদানি করতে হত, আগামী তা আর করতে হবে না। বিশ্বের ১২০টি দেশে বাংলাদেশের পাট পন্য রপ্তানি হয়, দিন দিন তা আরো বাড়ছে।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান, সাংসদ মুহিবুর রহমান মানিক, জয়া সেন গুপ্তা, মেয়াজ্জেম হোসেন রতন, শাহানা রব্বানী, পুলিশ সুপার বরকতুল্লাহ খান, জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ, জেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার এম এনামুল কবির ইমন, সুনামগঞ্জ পৌরসভার মেয়র নাদের বখত, জেলা আ.লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সিরাজুর রহমান সিরাজ,সিনিয়র সহকারি পুলিশ সুপকার মো. মাহবুবুর রহমান প্রমুখ।
পরে প্রতিমন্ত্রী স্থানীয় আ.লীগ আয়োজিত জনসভায় যোগ দিন।

সংবাদটি শেয়ার করুন