শনিবার, ১৩ অগাস্ট ২০২২ | ২৯ শ্রাবণ ১৪২৯

আবারও সাইবার হামলা চালাল রাশিয়া, অভিযোগ যুক্তরাজ্যের



চারটি বড় ধরণের সাইবার হামলা চালিয়েছে রাশিয়ার সেনা গোয়েন্দা সংস্থা (জিআরইউ), এমনটা অভিযোগ করেছে যুক্তরাজ্য সরকার। নিজের দেশের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানেও ফের এ সাইবার হামলা চালায় তারা। খবর: বিবিসি।

যুক্তরাজ্যের সাইবার নিরাপত্তা বিষয়ক প্রতিষ্ঠান দ্য ন্যাশনাল সাইবার সিকিউরিটি সেন্টার (এনসিএসসি) জানায়, রাশিয়া ও ইউক্রেনের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান, যুক্তরাষ্ট্রের ডেমোক্রেটিক পার্টি এবং যুক্তরাজ্যের একটা টিভি নেটওয়ার্কে এ হামলা চালিয়েছে রাশিয়া।

তবে রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একজন মুখপাত্র যুক্তরাজ্যের এ অভিযোগকে ‘কল্পনাপ্রসূত’ বলে উড়িয়ে দেন।

এদিকে ডোপিং বিরোধী ও শনাক্তকরণের জন্য অলিম্পিকের সংস্থা ওয়ার্ল্ড অ্যান্টি-ডোপিং অ্যাজেন্সি (ডব্লিওএডিএ) জানাচ্ছে, তাদের কম্পিউটার সিস্টেমও সাইবার হামলার শিকার হয়েছে।

এর আগেও একাধিক সাইবার হামলার জন্য রাশিয়াকে দায়ী করা হয়। তবে এ প্রথম যুক্তরাজ্যের পক্ষ থেকে সরাসরি এর জন্য রাশিয়ান গোয়েন্দা সংস্থার বিরুদ্ধে অভিযোগ তোলা হলো।

ব্রিটিশ পুলিশের ধারণা, মার্চ মাসে হামলার শিকার হওয়ায় যুক্তরাজ্যের হয়ে কাজ করা রাশিয়ান গুপ্তচরকে হামলার পিছনে একই সংস্থা জড়িত।

রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মারিয়া যাকারোভা বলেন, জিআরইউ, ডব্লিউএডিএ, ক্রেমলিন হ্যাকার সবকিছুকে গুলিয়ে যেন একটি পারফিউম বোতল বানালো যুক্তরাষ্ট্র। এটা একটা উদ্ভট সুগন্ধী।

এদিকে ব্রিটিশ প্রতিরক্ষামন্ত্রী গ্যাভিন উইলিয়ামসন রাশিয়াকে ‘প্যারিয়া স্টেট’ হিসেবে নিন্দা জানান। তিনি বলেন, রাশিয়া এখন নির্বাসিত রাষ্ট্রে পরিনত হচ্ছে। বিশ্বজুড়ে তাদের নির্বিচারে এসব হামলার কারণে তারা আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ছে।

ব্রিটিশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সেক্রেটারি জেরেমি হান্ট বলেন, রুশ গোয়েন্দা সংস্থার এই বেপরোয়া সাইবার হামলা একটা দেশের জাতীয় নিরাপত্তা স্বার্থবিরোধী।

লন্ডনের সাইবার নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ অ্যান্ড্রু সনকেভ বলেন, এ হামলার জন্য জড়িতদের অবশ্যই আইনের আওতায় আনা উচিত।

তিনি বলেন, মানুষের সুস্পষ্টভাবে সচেতন হওয়া দরকার যে তাদের ব্যবহৃত যাবতীয় তথ্য প্রযুক্তি সেবাগুলো এখন চরম ঝুঁকিতে আছে সেইসাথে যেকোনো ধরণের নাশকতার শিকার হতে পারে।

সংবাদটি শেয়ার করুন