শনিবার, ১৩ অগাস্ট ২০২২ | ২৯ শ্রাবণ ১৪২৯

৭ দফা দাবিতে সুনামগঞ্জে বিএনপির বিক্ষোভ মিছিল ও স্মারকলিপি প্রদানে পুলিশের বাঁধা



দেশনেত্রী সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও ৭ দফা দাবি আদায়ের লক্ষে কেন্দ্রিয় কর্মসুচির অংশ হিসেবে বিক্ষোভ মিছিল সমাবেশ ও জেলা প্রশাসক বরাবরে স্মারকলিপি প্রদান করেছে সুনামগঞ্জ জেলা বিএনপি।

বুধবার দুপুরে শহরের পুরাতন বাসষ্টেশনে ৭দফা দাবি বাস্তাবায়নের লক্ষে জেলা বিএনপির সভাপতি কলিম উদ্দিন মিলনে সভাপতিত্বে ও জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম নুরুলের পরিচালনায় সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা সাবেক হুইপ এডভোকেট ফজলুল হক আসপিয়া। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি দেওয়ান জয়নুল জাকেরীন, ওয়াকিফুর রহমান গিলমান, আব্দুল লতিফ জেপি, আব্দুল মোতালেব খান, ফারুক আহমদ, আ.ত.ম মিসবাহ, নাদের আহমেদ, রেজাউল হক, অ্যাড.শেরেনুর আলী, আনিসুল হক, আবুল মনসুর শওকত, আকবর আলী, সেলিম উদ্দিন আহমদ, আবুল কালাম, আনসার উদ্দিন, শামসুল হক নমু, যুগ্ম সম্পাদক নূর হোসেন, নাসিম উদ্দিন লালা, শোয়েব আহমদ, মোনাজ্জির হোসেন সুজন, মামুনুর রশিদ শান্ত, সাংগঠনিক সম্পাদক নজরুল ইসলাম, কোষাধক্ষ্য সাইফুল্লাহ হাসান জুনেদ, দপ্তর সম্পাদক জামাল উদ্দিন বাকের, জেলা বিএনপি নেতা দেওয়ান সাজাউর রাজা সুমন, জুনাব আলী, শাহ মো. শাহজাহান, মোর্শেদ আলম, আকবর আলী, রাকিবুল ইসলাম দিলু, আব্দুর রহিম ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল হাই ও ফুল মিয়া প্রমুখ। সমাবেশ শেষে শহরের পুরাতন বাসষ্টেশন এলাকা থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের হয়ে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে গেলে মুল ফটকে পুলিশ বাধা দিলে সেখানেই তারা বিক্ষোভ মিছিল সমাপ্ত করে। পরে বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও ৭ দফা আদায়ের জন্য জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল আহাদের বরাবরে স্মারকলিপি প্রদান করেন নেতাকর্মীরা। ৭ দফা দাবিতে উল্লেখ করা হয়, বেগম খালেদা জিয়ার নি:শর্ত মুক্তি এবং তাঁর বিরুদ্ধে দায়েরকৃত সকল মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও তারেক রহমানের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত সকল মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করতে হবে। জাতীয় সংসদ বাতিল করতে হবে। সরকারের পদত্যাগ ও সকল রাজনৈতিক দলের সাথে আলোচনা সাপেক্ষে নির্বাচনকালীন নিরপেক্ষ সরকার প্রতিষ্ঠা করা। সুষ্ঠু নির্বাচনের স্বার্থে প্রতিটি ভোটকেন্দ্রে ম্যাজিস্ট্রেসী ক্ষমতা সহ সশস্ত্রবাহিনী নিয়োগ নিশ্চিত করা। নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার না করার বিধান নিশ্চিত করা। নির্বাচনের স্বচ্ছতা নিশ্চিত করতে দেশীয় ও আর্ন্তজাতিক পর্যবেক্ষক নিয়োগের ব্যবস্থা নিশ্চিত করা এবং সর্ম্পূণ নির্বাচন প্রক্রিয়া পর্যবেক্ষনে তাদের উপর কোনো বিধি-নিষেধ আরোপ না করা। দেশের সকল বিরোধী-রাজনৈতিক নেতা কর্মীর মুক্তি, সাজা বাতিল ও মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার, নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার তারিখ থেকে নির্বাচনী ফল চুড়ান্ত ভাবে প্রকাশিত না হওয়া পর্যন্ত চলমান সকল রাজনৈতিক মামলা স্থগিত রাখা ও নতুন কোনো ধরণের মামলা না দেওয়ার নিশ্চয়তা, পুরনো মামলায় কাউকে গ্রেফতার না করার নিশ্চয়তা, কোটা সংস্কার আন্দোলন, নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন, সাংবাদিকদের আন্দোলন এবং সামাজিক গণমাধ্যমে স্বাধীন মত প্রকাশের অভিযোগে ছাত্র-ছাত্রী, সাংবাদিক সহ সকলের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত হয়রানিমূলক মামলা প্রত্যাহার ও গ্রেপ্তারকৃতদের মুক্তির দাবী জানান।

সংবাদটি শেয়ার করুন