বৃহস্পতিবার, ১১ অগাস্ট ২০২২ | ২৭ শ্রাবণ ১৪২৯

বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ধর্ষণের মামলা: গ্রেপ্তারের দাবি



সুনামগঞ্জের বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি হারুনুর রশিদের গ্রেপ্তার ও শাস্তি দাবিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করেছে স্থানীয়রা।

বুধবার (২৬ সেপ্টেম্বর) বিকালে নিজ কার্যালয়ে এক নারীকে জোর পূর্বক ধর্ষণের অভিযোগে ওই দিন সন্ধ্যায় থানায় মামলা হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে তাকে গ্রেপ্তারের দাবিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা পরিষদের সামনে আব্দুল কাদির চত্বরে এলাকাবাসী ও উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের অংশগ্রহণে ঘন্ট্যাবাপী এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানবন্ধনে বক্তারা অবিলম্বে উপজেলা চেয়ারম্যানকে গ্রেপ্তার করে শাস্তির আওতায় আনার পাশাপাশি তাকে উপজেলা পরিষদ থেকে বহিষ্কারের দাবি করেন।

সাংবাদিক হাসান বশিরের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ধনপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম তালুকদার, উপজেলা যুবলীগের সাবেক সভাপতি নুরুল আলম সিদ্দিকী, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মোশারফ হোসেন বাবলু, সাধারণ সম্পাদক জুয়েল আহমদ, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি হুমায়ূন কবির পাপন, ছাত্রলীগ নেতা সাইফুল ইসলাম প্রমুখ।

বক্তারা আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে হারুনুর রশিদের গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়ে বলেন, ‘অন্যতায় সড়ক অবরোধসহ নানা কর্মসূচি দেওয়া হবে।’ সাবেক যুবলীগ সভাপতি নুরুল আলম সিদ্দিকী বলেন,‘ অতিথেও উপজেলা চেয়ারম্যান হারুন এ ধরণের অপরাধ কর্মে জড়িয়েছেন, ক্ষমা চেয়ে তিনি রক্ষা পেয়েছেন।’

মানববন্ধন শেষে উপজেলা পরিষদের সামনে থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। মিছিলটি উপজেলা সদরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে।

প্রসঙ্গত, বুধবার বেলা আড়াইটায় নিজের কার্যালয়ের সেলাই মেশিন দেবার প্রলোভন দেখিয়ে ৪ সন্তানের জননীকে জোরপূর্বক ধর্ষণের অভিযোগ এনে উপজেলা চেয়ারম্যান হারুরুর রশিদ’এর বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করেন ওই নারী। তবে উপজেলা চেয়ারম্যান হারুনুর রশিদ এ ঘটনাকে সাজানো নাটক দাবি করেছেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন