রবিবার, ১৪ অগাস্ট ২০২২ | ৩০ শ্রাবণ ১৪২৯

উন্নয়নের খতিয়ান-দক্ষিণ সুনামগঞ্জে ৭ বছরে ৩৮ সেতু



আওয়ামী লীগ সরকার টানা ৮ বছর ক্ষমতায় থাকায় সারাদেশের ন্যায় সুনামগঞ্জের দক্ষিণ সুনামগঞ্জের অবকাঠামোগত ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। দক্ষিণ সুনামগঞ্জ-জগন্নাথপুরের সংসদ সদস্য অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নানের প্রচেষ্টায় দক্ষিণ সুনামগঞ্জে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। বাঁশের সাঁকো ও কাঁচা রাস্তার উন্নয়ন হয়ে গ্রামীণ জনপদ শহরে পরিণত হচ্ছে। ২০০৮ সালের আগে নতুন এই উপজেলায় এত উন্নয়ন হয়নি। গ্রামীণ এ জনপদটিতে ছিল বাঁশের সাঁকো ও কাঁচা রাস্তা।
উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিস সূত্রে জানা যায়, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের অর্থায়নে ২০০৯-১০ অর্থ বছরে ১৮ লক্ষ ৬৪ হাজার ৭৬৭ টাকা ব্যয়ে উপজেলার দরগাপাশা ইউপির  কাবিলাখাই ভাঙ্গায় ৩৩ ফুট দৈর্ঘ সেতু নির্মাণ করা হয়েছে।      ২০১০-১১ অর্থ বছরে ১৮ লক্ষ ৯৮ হাজার ৯৩৯ টাকা ব্যয়ে একই ইউনিয়নের সিচনী গ্রামের রাস্তায় মরা আমতৈল নদীর উপর ৩৯ ফুট দৈর্ঘ সেতু নির্মাণ করা হয়েছে।
২০১১-১২ অর্থ বছরে ১৯ লক্ষ ৯৮ হাজার ৮৫১ টাকা ব্যয়ে নির্মাণ শিমুলবাঁক ইউপির তেহকিয়া গ্রামের মধ্যেবর্তী নেতাই নদীর উপরে ৪০ ফুট দৈর্ঘ সেতু নির্মাণ করা হয়েছে।
২০১২-১৩ অর্থ বছরে ১৬ লক্ষ ৫৮ হাজার ৫১৮ টাকা ব্যয়ে পাথারিয়া ইউপির আসামুড়া পশ্চিম হাঠির খালের উপর ২০ ফুট দৈর্ঘ সেতু নির্মাণ করা হয়েছে।
২০১৪-১৫ অর্থ বছরে ৩১ লক্ষ ১৭ হাজার ৪৮২ টাকা ব্যয়ে পূর্ব পাগলা ইউপির বেতকোনা-চুরখাই রাস্তায় বেতকোনা খালের উপরে ৩৯ ফুট ব্রীজ করা হয়েছে।
এছাড়া দরগাপাশা ইউপির মিনাবাজার-নুরপুর রাস্তায় লেউনী খালের উপর ৩১ লক্ষ ১৭ হাজার ৪৮২ টাকা ব্যয়ে ৩৯ ফুট ব্রীজ, সৈয়দপুর-গান্ডিডোয়ার রাস্তায় আমতৈল খালের উপর ২৮ লক্ষ ১৯ হাজার ৯৩৩ টাকা ব্যয়ে ৩৬ ফুট লম্বা ব্রীজ করা হয়েছে। ৩১ লক্ষ ১৭ হাজার ৪৮২ টাকা ব্যয়ে পাথারিয়া ইউপির গনিগঞ্জ-ডুলকর রাস্তায় বাবনিয়া খালের উপর ৩৯ ফুট লম্বা ব্রীজ করা হয়েছে।
৩১ লক্ষ ১৭ হাজার ৪৮২ টাকা ব্যয়ে পশ্চিম পাগলা ইউপির শত্রুমর্দন গ্রামের রাস্তায় লাউয়া খালের উপরে ৩৯ ফুট লম্বা ব্রীজ করা হয়েছে। শিমুলবাঁক ইউপির কুতুরপুর-রামেশ্বরপুর রাস্তায় বাঞ্চাখালী খালের উপর ২২ লক্ষ ৯৯ হাজার ৫০৫ টাকা ব্যয়ে ৩৩ ফুট ব্রীজ করা হয়েছে।
২০১৫-১৬ অর্থ বছরে জয়কলস ইউপির ডুংরিয়া ঘরোয়া রাস্তায় বাউরি নদীতে ৩২ লক্ষ ৫২ হাজার ৬৫৩ টাকা ব্যয়ে ৪০ ফুট ব্রীজ করা হচ্ছে।  শিবপুর-ঘরোয়া রাস্তায় বাউরি নদীর উপর ২৯ লক্ষ ৫৭ হাজার ৮৩৭ টাকা ব্যয়ে ৩৬ ফুট ব্রীজ নির্মাণ হচ্ছে।
পশ্চিম বীরগাঁও ইউপির রজনীগঞ্জ-শান্তিগঞ্জ রাস্তায় ঠাকুরভোগ গ্রামের খালের উপর ৩২ লক্ষ ৫২ হাজার ৬৫৩ টাকা ব্যয়ে ৪০ ফুট ব্রীজ করা হয়েছে।
পশ্চিম পাগলা ইউপির কাদিপুর গ্রামের বারমুনী খালের উপর ৩২ লক্ষ ৫২ হাজার ৬৫৩ টাকা ব্যয়ে ৪০ ফুট ব্রীজ করা হয়েছে। শত্রুমর্দন গ্রামের কাছের লাউয়া খালের উপর ৩২ লক্ষ ৫২ হাজার ৬৫৩ টাকা ব্যয়ে ৪০ ফুট ব্রীজ করা হয়েছে।
পূর্ব পাগলা ইউপির চিকারকান্দি-জাইর খালের ৩২ লক্ষ ৫২ হাজার ৬৫৩ টাকা ব্যয়ে ৪০ ফুট ব্রীজ করা হয়েছে। কাড়ারাই গ্রামের খালের উপর ৩২ লক্ষ ৫২ হাজার ৬৫৩ টাকা ব্যয়ে ৪০ ফুট ব্রীজ , চিকারকান্দি গ্রামের নয়াগাঁও খালের উপর ৩২ লক্ষ ৫২ হাজার ৬৫৩ টাকা ব্যয়ে ৪০ ফুট ব্রীজ ও পাগলা-বীরগাঁও কবরস্থানের নিকটস্থ খালের উপর ৩২ লক্ষ ৫২ হাজার ৬৫৩ টাকা ব্যয়ে ৪০ ফুট ব্রীজ করা হয়েছে।
শিমুলবাঁক ইউপি থলেরবন্দ-লালুখালী রাস্তায় কুরবানখালী খালের উপর ৩২ লক্ষ ৫২ হাজার ৬৫৩ টাকা ব্যয়ে ৪০ ফুট ব্রীজ, ধনপুর নয়াগাঁও রাস্তায় নয়াদাড়ার খালের উপর ২৪ লক্ষ ৬৮ হাজার ৯১৫ টাকা ব্যয়ে ৩০ ফুট ব্রীজ, হাসনাবাজ-কাঠালিয়া-আক্তাপাড়া রাস্তায় পিয়াইন খালের উপর ৩২ লক্ষ ৫২ হাজার ৬৫৩ টাকা ব্যয়ে ৪০ ফুট ব্রীজ করা হয়েছে।
দরগাপাশা ইউপির হলদারকান্দি-বাংলাবাজার রাস্তায় রত্মা নদীর উপর ৩২ লক্ষ ৫২ হাজার ৬৫৩ টাকা ব্যয়ে ৪০ ফুট ব্রীজ, হরিনগরের রাস্তায় ৩২ লক্ষ ৫২ হাজার ৬৫৩ টাকা ব্যয়ে ৪০ ফুট ব্রীজের কাজ প্রায় শেষ, মিনাবাজর-নুরপুর রাস্তায় এলংগী খালের উপর ৩২ লক্ষ ৫২ হাজার ৬৫৩ টাকা ব্যয়ে ৪০ ফুট ব্রীজ করা হয়েছে।
২০১৬-১৭ অর্থ বছরে শিমুলবাঁক ইউপির লালুখালী হতে থলের বন্দের মাঝামাঝি রাস্তায় ৩২ লক্ষ ৫২ হাজার ৬৫৩ টাকা ব্যয়ে ৪০ ফুট ব্রীজ নির্মাণ হবে। নুরপুর গ্রামের খালের উপর ৪০ লক্ষ ৯৪ হাজার ৫০০ টাকা ব্যয়ে ৫০ ফুট লম্বা ব্রীজ করা হয়েছে।
জয়কলস ইউপির সদরপুর নি¤œ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে যাওয়ার রাস্তায় ৫৬ লক্ষ ৮৯ হাজার ১০৬ টাকা ব্যয়ে ৬০ ফুট লম্বা ব্রীজ করা হয়েছে, উজানীগাঁও কবরস্থানের রাস্তার খালের উপর ৩২ লক্ষ ৫২ হাজার ৬৫৩ টাকা ব্যয়ে ৪০ ফুট ব্রীজ নির্মাণ করা হচ্ছে।
পশ্চিম পাগলা ইউপির ইনাতনগর গ্রামের কাছে ৩২ লক্ষ ৫২ হাজার ৬৫৩ টাকা ব্যয়ে ৪০ ফুট ব্রীজ নির্মাণ হচ্ছে। ইনাতনগর গ্রামের সামনে খালের উপর ৩২ লক্ষ ৫২ হাজার ৬৫৩ টাকা ব্যয়ে ৪০ ফুট ব্রীজ করা হয়েছে। ব্রাহ্মণগাঁও গ্রামের সামনে লাউয়া নদীতে ২৭ লক্ষ ৯৪ হাজার ২৫৬টাকা ব্যয়ে ৩৪ ফুট ব্রীজ করা হয়েছে।
পূর্ব পাগলা ইউপির মাহমুদপুর গ্রামের কবরস্থানের পাশে ৩২ লক্ষ ৫২ হাজার ৬৫৩ টাকা ব্যয়ে ৪০ ফুট ব্রীজ নির্মাণের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। বেতকোনা গ্রামের খালের উপর ৩২ লক্ষ ৫২ হাজার ৬৫৩ টাকা ব্যয়ে ৪০ ফুট ব্রীজ নির্মাণের প্রক্রিয়া চলছে।
দরগাপাশা ইউপির দরগাপাশা মসজিদের পাশে খালে ১৯ লক্ষ ৭৪ হাজার ১৫৬ টাকা ব্যয়ে ব্রিজ নির্মাণ হচ্ছে। কাবিলাখাই গ্রামের উত্তর মাথায় ৪০ লক্ষ ৯৪ হাজার ৫০০ টাকা ব্যয়ে ৫০ ফুট লম্বা ব্রীজ হচ্ছে।
পূর্ব বীরগাঁও ইউপির বীরগাঁও-হাঁসকুড়ি রাস্তার খালে ২৭ লক্ষ ৯৪ হাজার ২৫৬ টাকা ব্যয়ে ৩৪ ফুট লম্বা ব্রীজ করা হয়েছে।পশ্চিম বীরগাঁও ইউপির ঠাকুরভোগ গ্রামের রাস্তায় ২৪ লক্ষ ৬৮ হাজার ৯১৫ টাকা ব্যয়ে ৩০ ফুট লম্বা ব্রীজ নির্মাণ হচ্ছে।
দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মো. শাহাদাৎ হোসেন ভুঞা জানান, আগামী ২-১ বছরের মধ্যে দক্ষিণ সুনামগঞ্জে গ্রামীণ জনপদে বাঁশের সাঁকু থাকবে না। আমরা সে লক্ষ্যেই কাজ করে যাচ্ছি।’
তিনি বলেন,‘ ২০১৪-১৫ সালের আগে প্রতি বছরে ১-২ টি ব্রীজের বরাদ্দ আসতো। এখন অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান মহোদয়ের প্রচেষ্টায় প্রতি অর্থ বছরে ১০-১৫টি ব্রীজের বরাদ্দ আসছে। আমরা সেই কাজগুলো সফলভাবে সম্পন্ন করে যাচ্ছি।’

সংবাদটি শেয়ার করুন